কিভাবে ব্লগ থেকে ইনকাম করা যেতে পারে ?

কিভাবে ব্লগ থেকে ইনকাম করা যেতে পারে ?

কিভাবে ব্লগ থেকে ইনকাম করা যেতে পারে,

 

how-to-earn-from-blogging-top-ideas-for-2020-in-bengali, 

 

 

নমস্কার  বন্ধুরা,

আমরা এর আগে জেনেছি ব্লগ কি কিভাবে এটি শুরু করা যেতে পারে, যদি আপনি ওই আর্টিকেল টি না পড়ে থাকেন,

তাহলে নিচের লিংক থেকে পড়তে পারেন,

 

 

বন্ধুরা আপনি যদি ব্লগিং এ নতুন হয়ে থাকে, এবং চিন্তিত রয়েছেন কিভাবে একটি ব্লগ থেকে ইনকাম করা হয় ?

তাহলে এই পোস্ট টি আপনার জন্যে, পুরো আর্টিকেল পরে নিন এবং আমাদের জানিয়ে দিন কোনটি আপনি পছন্দ বেশি করেন,

 

কিভাবে ব্লগ থেকে ইনকাম করা যেতে পারে ?

 

১ – একটি ডোনেশন সিস্টেমস দ্বারা :

 

আমি জানি আপনি গরিব নয়, তবে হোস্টিং / ডোমেইন ইত্যাদি লাইভ রাখার জন্যে খরচ তো অবশ্যই হবে,

আপনার এই প্রশ্ন সমাধান এর জন্য আমি আপনাকে জানিয়ে দি, যদি আপনি ওয়ার্ডপ্রেস অথবা কখনো ব্লগ বানাতে চেষ্টা করে থাকবেন,

 

হয়তো খেয়াল করে থাকবেন, যেগুলি ফ্রি প্লুগিন্স অথবা থিম থাকে ওগুলিতে ডোনেশন সিস্টেম থেকে থাকে,

আসুন এটি আরো ভালো করে দেখে নেয়া যাক,

 

কখনো আপনি দেখে থাকবেন pexel যেখান থেকে ফ্রি ফটো ডাউনলোড করা যায় ওখানে এই সিস্টেম রয়েছে, যেখান থেকে ফটোগ্রাফার রা খুব ভালো ইনকাম করেন,

আপনি এই  সিস্টেমস কি করে বানানো যায় সে বিষয়ে অবশ্যই পরবর্তী সময়ে আলোচনা করবো,

 

২ – মেম্বারশিপ এর দ্বারা :

 

বন্ধুরা এই সিস্টেম এর সাহায্যে আপনি ইনকাম খুবই ভালো করতে পারবেন,

তবে এর জন্য আপনার মধ্ধ্যে এমন গুন্ থাকা দরকার যা অন্য কারোর মধ্যে নাই,

 

যেমন আপনি যদি খাবার ভালো বানাতে জানেন এবং এমন কিছু খাওয়ার আপনি বানান আমি অবশ্যই অপার থেকে মেম্বারশিপ নেবো,

 

তবে সেটা তখনি যদি আপনার খাওয়ার বানানোর প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ আলাদা হয়ে থাকে,

আপনি খুব সহজে মেম্বারশিপ সিস্টেমস ওয়ার্ডপ্রেস এর সাহায্যে করতে পারেন,

 

যদি আপনি এর সম্পর্কে না জেনে থেকে থাকেন, তবে আমাদের ব্লগ ফলো করুন,

আমরা খুব তাড়াতাড়ি এর সম্পর্কে একটি আর্টিকেল নিয়ে অবশ্যই আসবো,

 

কিভাবে ব্লগ থেকে ইনকাম করা যেতে পারে ?

 

৩ – স্পন্সরড পোস্টস দ্বারা :

 

একটি স্পন্সর্ড পোস্টস থেকে আপনি আপনার ওয়েবসাইট এর পেছনে করা খরচ এক বাড়ে তুলে নিতে পারেন,

আপনাকে জানিয়ে দি সময় অনুপাতে এটি কম বেশি হয়ে থাকে,

 

যেমন আমাদের এই ব্লগ এ স্পন্সরড এর জন খুবই সামান্য অংকের টাকা আমরা পেয়েছিলাম,

এবং স্পন্সরড করা সর্ব প্রথম পোস্ট ছিল tiktok নিয়ে, যেটির জন্য আমরা ১৫০ টাকা পেয়েছিলাম, যেটি কিছু না,

 

তাই আপনি শুরুতে একেবারে স্পন্সরড পোস্টস করবেন না,

কারণ সাইট যদি পরবর্তীতে র্যাংক করে তখন এই আঁকা টি ১৫০০০ হয়ে যেতে পারবে,

আশা করি বুঝতে পেরেছেন,

 

৪ – নিজের বস্তু বিক্রি করে :

 

না আমি এফিলিয়এট  মার্কেটিং এর কথা বলছি না, আমি বলছি আপনি আপনার নিজের লেখা ইবুক ,

ডিজিটাল প্রোডাক্টস আপনি বিক্রি করতে পারেন,

তবে এতে সময়ের খুবই দরকার।

 

৫ – নিজস্ব স্টোর বানিয়ে :

 

আপনি যদি নিজের স্টোরে বানান তবে এতে আপনি নিজস্ব এবুক্স এবং ডিজিটাল গুড সাহা ফিজিক্যাল বস্তুওবিক্রি করতে পারবেন,

আমরা খুব তাড়াতাড়ি এর সম্পর্কে একটি টিউটোরিয়া নিয়ে আসবো, এছাড়াও আপনি ভবিষ্যতে https://services.mydreamblog.in

থেকে ওয়েবসাইট সার্ভিস কিনতে পারেন,

অপি আমাদের স্টোরে ভিসিট করতে পারেন https://store.mydreamblog.in

 

৬ – একটি এফিলিয়ট ওয়েবসাইট তৈরী করে :

 

একটি এফিলিয়াতে মার্কেটিং ওয়েবসাইট থেকে আপনি ইনকাম করতে পারবেন এডসেন্স এর থেকেও অধিক,

বন্ধুরা আমাদের এই ব্লগ এর সাবডোমেইযেন  প্রায় ৭টি রয়েছে যার জন্যে প্রায় ১০০০০ টাকা আমাকে হোস্টিং এ প্রতি বছর দিতে হয়,

 

তাই এই ব্লগ এ আমাকে একসাথে এফিলিয়াট ও এডসেন্স এডস চালাতে হয়,

এফিলিয়াট মার্কেটিং হলো আপনি যখন কোন বস্তু কিছু সিস্টেমস এর সাহায্যে আপনার সাইট থেকে কারোর বস্তু বিক্রি কারাতে সাহায্য করেন সেটিকে বলে খুব সাহারা ভাবে,

 

৭ – Monitizations করে :

 

এডসেন্স এডস সাহায্যে আপনি ইনকাম করতে পারেন, কিন্তু যদি আপনি নতুন হয়ে থাকেন,

এবং আপনার ব্লগ অথবা ওয়েবসাইট এ কোয়ালিটি ট্রাফিক না আসে,

 

আমি কোয়ালিটি ট্রাফিক এর কথা  বলছি, কোয়ানটিটি ট্রাফিক নয়,

তাহলে আপনাকে এফিলিয়াট মার্কেটিং করা সবচেয়ে ভালো হবে,

যদি এফিলিয়েট মার্কেটিং সম্পর্কে না জেনে থাকেন, তাহলে আপনি এডসেন্স উসে করতে পারেন,

 

৮ – পেইড পোস্টস দ্বারা :

 

পেইড পোস্টস এর কথা আমি বলছি গেস্ট পেইড পোস্টস নয়, এটি অনেকটা পেইড মেম্বারশিপ এর মতো,

এর সাহায্যে আপনি আপনার কোনো লেখনী পেইড করে রেজিস্টার্ড ইউসার কে দেখতে পারেন,

আমরা অবশ্যই এর সম্পর্কে আপনাকে ভবিষ্যতে শেখাবো,

 

৯ – পেইড রিভিউ করে :

 

পেইড রিভিউ অনেকটা পেইড গেস্ট পোস্ট এর মতো, তবে পেইড রিভিউ এ আপনাকে সবকিছু করতে হবে,

যেমন ফটো  তোলা থেকে  সবকিছু,

 

১০ – পার্টনারশীপ দ্বারা :

 

এটি খুব ভালো একটি ফলদায়ক অংশ কোনো ব্লগ কে উচ্চ শিখরে নিয়ে যাওয়ার জন্য,

যেমন আমি ব্লগ সম্পর্কে যাই কিন্তু যদি আপনি ভালো খাবার বানাতে পারেন সে সম্পর্কে লেখেন তাহলে লগ এর সম্পর্কে জানতে পারবে, এক জায়গা থেকে,

 

এভাবে যদি আপনি কারোর সাথে পার্টনারশীপ নেন তাহলে ব্লগ rank ভালো হয় ,

 

বন্ধুরা আজকের টপিক কিভাবে ব্লগ থেকে ইনকাম করা যেতে পারে ? সম্পর্কে কোনো প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করতে পারেন,

 

how-to-earn-from-blogging-top-ideas-for-2020-in-bengali

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *